Avocado বা অ্যাভোকাডো হচ্ছে এক ধরনের সবুজ রং বিশিষ্ট পুষ্টিকর ফল। এটি দেখতে বড় আকারের লম্বাটে পেয়ারার মতো। একেকটি ফলের ওজন প্রায় ২৫০ থেকে ৭০০ গ্রাম পর্যন্ত হয়ে থাকে। মধ্য আমেরিকা ও মেক্সিকোতে দেশীয় ফল হিসেবে চাষ করা হয় ও এই অঞ্চলে বেশি জন্মায়। পুষ্টিবিদগন একে পৃথিবীর সবেচেয়ে বেশি পুষ্টিকর ফলগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি ফল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

পুষ্টিগুন

পুষ্টিবিদদের মতে প্রতি ৮০ গ্রাম অ্যাভোকাডোতে রয়েছে ১৫২ ক্যালরি, ৫ গ্রাম প্রোটিন, ৬ গ্রাম ফ্যাট, ৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ৬ গ্রাম ফাইবার, ৩৬০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম, ও ৫৬ মিলিগ্রাম ভিটামিন-ই।

অ্যাভোকাডো ফলের উপকারিতা

পুষ্টিবিদ ও বিজ্ঞানি উইলসন পোপেনোর ভাষ্য মতে, অ্যাভোকাডো হচ্ছে মানুষের জন্য সৃষ্টিকর্তার একটি বড় উপহার। তাহলে আপনি নিশ্চয়ই ধারনা করতে পারছেন এর পুষ্টিগুন কেমন হতে পারে বা এর উপকারিতা কেমন হবে। তো চলুন কথা না বাড়িয়ে চলুন অ্যাভোকাডো ফলের বিভিন্ন উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাকঃ

) পুষ্টি চাহিদা পুরন

পুষ্টিকর ফলের তালিকায় অ্যাভোকাডোর স্থান প্রথম সারিতে। এতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন-ই, ফাইবার এবং আয়রন, কপার ও পটাশিয়াম। যা আনার শরীরে পুষ্টি চাহিদা পুরন করে।

) হার্টের উন্নতি সাধন

প্রচুর ফ্যাট সমৃদ্ধ এই ফলে প্রায় ৬০% মন্সাচুরেরেটেড ফ্যাট রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে এই মন্সাচুরেরেটেড ফ্যাট হৃদরোগ এবং নিম্ন রক্তচাপ থেকে রক্ষা করে। এবং এতে থাকা পটাশিয়াম, ফাইবার হৃদপিণ্ড ও কার্ডিওভাসকুলার সিস্টেমের উপকার করে।

) চোখের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি

অ্যাভোকাডোতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন-ই, পাশাপাশি এতে রয়েছে লুটেইন, ক্যারোটিন ও জেক্সানথিন যা আপনার চোখের স্বাস্থ্য  ঠিক রাখার পাশাপাশি চোখের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি সাধন করে। পাশাপাশি চোখে ছানি পড়ার ঝুকি হ্রাস করে।

) ক্ষুদা নিয়ন্ত্রণ

পুষ্টিবিদদের মতে খাবারের সাথে অ্যাভোকাডো খেলে ২৩ শতাংশ বেশি তৃপ্তি পাওয়া যায়। এবং খাওয়ার পরবর্তী ৪ থেকে ৫ ঘণ্টায় খাওয়ার ইচ্ছা ২৮ শতাংশ হ্রাস পায়। যা আপনাকে খুদা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

ফলে আপনি যদি ওজন কমাতে ডায়েট কন্ট্রোল করতে চান তাহলে প্রদিনের খাদ্য তালিকায় পরিমান মতো অ্যাভোকাডো যোগ করতে পারেন। পাশাপাশি এতে থাকা ফাইবার ও লো-কার্বস ওজন কমানোর প্রক্রিয়া সহজ করে।

৫) বাতের ব্যাথা থেকে মুক্তি

সাম্প্রতিক সময়ে পশ্চিমা দেশ গুলোর মতো আমাদের দেশেও বাতের ব্যাথা একটি নিয়মিত রোগে পরিণত হয়েছে। এক দিনে বা এক মাসে চিরতরে বাতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব না। অনেকের মতে একবার বাতের ব্যাথা হলে এটি সারা জীবন ধরে থাকে। এই ফল এক্সট্র্যাস্ট আস্টিওআর্থারাইটিস হ্রাস করে থাকে। এছাড়াও এক বিশেষ সমীক্ষায় দেখা যায় এটি কেমোথেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হ্রাসেও সহায়তা করে।

অসাধারণ স্বাস্থ্যকর ও গুণগত মানসম্মত এই ফল টি কিনতে ভিজিট করুন এই লিঙ্কে ঃ- Avocado (Kenya)

 

Tags:

The Food Citi

See all author post

Leave a Comment

0
X